Rabindranath Ekhane Kokhono Khete Asen Ni রবীন্দ্রনাথ এখানে কখনও খেতে আসেননি - Abu Hasan Rumi

রবীন্দ্রনাথ এখানে কখনও খেতে আসেননি

অনেকদিন ব্লগে কিছু লিখি না। বলতে গেলে সময় পাই না, অথবা টপিক খুজে পাই না। তবে আজ একটু ভিন্ন ধাঁচের টপিক নিয়ে লিখতে বসলাম।

রবীন্দ্রনাথ এখানে কখনও খেতে আসেননি, নামটা এমনই। কিন্তু কেমন যেন অদ্ভুত ঠেকল না? এটা কিসের নাম? হ্যা, আমি বলছিলাম ২০১৮ সালের বইমেলায় প্রকাশিত হওয়া লেখক মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিনের ‘রবীন্দ্রনাথ এখানে কখনও খেতে আসেননি’ বইয়ের কথা। সচরাচর বইয়ের এমন নাম দেখা যায় না। আর এ নামটাই বইয়ের প্রতি আগ্রহ অনেকটাই বাড়িয়ে দেয়।

শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায় একবার বলেছিলেন, কোনো বইয়ের প্রথম ৩০ পাতা পাঠককেই কষ্ট করে পড়তে হবে, আর বাকি অংশটুকু পাঠককে পড়ানোর দায়িত্ব লেখকের। এই বইয়ের ক্ষেত্রে পাঠকের দায়িত্বটা একটু বেশি। কথায় বলে, সবুরে মেওয়া ফলে।  ২৬৪ পৃষ্ঠার এই বইয়ে প্রথম ১০০ পৃষ্ঠা একটু কষ্ট করে পড়তে পারলেই সেই মেওয়া আপনি পেতে শুরু করবেন। এই থ্রিলার বইয়ের ক্ষেত্রে মেওয়া হলো টুইস্ট আর ক্লাইমেক্স। কি থেকে কি হবে তা বুঝে ওঠা খুবই কষ্টসাধ্য। শেষের ৮০ পৃষ্ঠা বইটাকে নিয়ে গেছে এক অন্য লেভেলে।

বইপোকারা হয়তো জানেন যে কোনো বইয়ের ক্ষেত্রে শেষ অংশটুকু খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অর্থাৎ আমি সেই পরিচিত বাক্য ‘শেষ ভালো যার সব ভালো’র কথা বলছি। মাঝে মাঝে শেষের মুগ্ধতার গভীরতা এতোটাই হয় যে, পাঠকরা প্রথমদিককার রুক্ষতাকে ভুলে শেষের গভীরতায় ডুবে যায়। আমি আবার অতোটা বড় পাঠক নই, তাই কোনো বইয়ে ডুব দেয়ার আগে পায়ে দড়ি বেধে নামি। ডুবে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা গেলে দড়ি ধরে উপরে উঠে আসি।

এই থ্রিলার উপন্যাসটা শুরু হয় খুবই সামান্য ভাবে। শহরের অদূরে নির্জনে এক অদ্ভুত এবং রহস্যময় নামের রেস্টুরেন্ট আছে, রেস্টুরেন্টের রান্না অসাধারণ হয়। দূরদূরান্ত থেকে মানুষ সে রেস্টুরেন্টে খেতে আসে। কিন্তু এ রেস্টুরেন্টের চেয়েও বেশী রহস্যময়ী তার মালকিন মুসকান জুবেরি। এই মুসকান জুবেরিকে দিয়েই সব রহস্যের শুরু হয়, আবার এই মুসকান জুবেরিকে দিয়েই শেষ। সাথে আছে রহস্যের মায়াজালে আটকে পরা ডিবি অফিসার নূরে ছফা।

তারপর? নাহ, স্পয়লার দিবো না। তারপরেরটা বইয়ের পাতায় তোলা থাক।

এই বইয়েরই ২০১৯ বইমেলায় একটা সিকুয়েল এসেছে। সিকুয়েলের নাম ‘রবীন্দ্রনাথ এখানে কখনও আসেননি’। খুব শীঘ্রই এটাও পড়ার ইচ্ছা আছে।

মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিনের লেখা বই এবারই প্রথম পড়লাম। একজন থ্রিলার পাঠক হিসাবে মোটেও খারাপ লাগেনি। উনার লেখা সবগুলো বই’ই ধীরে ধীরে পড়ার ইচ্ছা আছে। এ বইয়ের পিডিএফ ভার্সনটা আমি পড়েছি, তাই হার্ডকপি আমার কাছে নেই। অর্থাৎ, কভারের ছবিটা কালেক্টেড। যারা হার্ডকপি কিনতে চান, রকমারিতেই পেয়ে যাবেন। আর পিডিএফের জন্য গুগল করলেই হবে।

সব শেষে রবীন্দ্রনাথ খেতে আসুক আর নাই আসুক, সবুর করে প্রথম দিকটা পড়তে পারলে মেওয়া আপনি পাবেনই। তার গ্যারান্টি অবশ্যই রইলো।

Abu Hasan Rumi
আমি আবু হাসান রুমি এবং আমি একজন টপ রেটেড এডমিন সাপোরটার এবং একজন ডিজিটাল মার্কেটার যে প্রতিনিয়তই তার কাজের দক্ষতা বাড়িয়ে তোলার চেষ্টায় আছে। আমার সকল চিন্তা-ভাবনা এবং আগ্রহকে সকলের সামনে তুলে ধরার উদ্দেশ্যেই এ ব্লগটি চালু করা।
Posts created 14

Related Posts

Begin typing your search term above and press enter to search. Press ESC to cancel.

Back To Top