জব প্রপোজালের সর্বনাশ করে দেয়া কিছু বাক্য – রিসার্চ পেপার

অনেকেই মাঝে মাঝে প্রশ্ন করেন, কিভাবে কভার লেটার লিখতে হবে। আসলে এ প্রশ্নের তেমন নির্দিষ্ট কোনো উত্তর নেই। কভার লেটার সম্পূর্ণ ভাবেই ক্লায়েন্টের জবের উপর নির্ভর করে। কিন্তু তারপরও আমরা সবার কিছু নির্দিষ্ট প্যাটার্ন রয়েছে। এমন কিছু বাক্য বা লাইন আছে, যেসব আমরা সব প্রপোজালের ক্ষেত্রেই ঘুরিয়ে ফিরিয়ে লিখি। আজ আমি সেসব নিয়েই কথা বলব। এমন কিছু বাক্য তুলে ধরবো, সেসব বাক্য আপনার হায়ার হওয়ার চান্স একেবারেই কমিয়ে দেয়। ভয় পাবেন না, সেসব বাক্যের বদলে কি লিখা যায়; তাও আমি বলে দিচ্ছি।

একটা মিনিট চিন্তা করে দেখুন, আপনি কোথাও বেড়াতে গেলেন। সেখানে কেউ আপনাকে চিনার কথা না। কিন্তু তারপরও আপনাকে একজন নাম ধরে ডাকলো। স্বাভাবিক ভাবেই আপনি তাকে নিয়ে কৌতহলী হয়ে উঠবেন। আপনি তার কথা শুনতে চাইবেন, বুঝতে চাইবেন সে কি বলছে। প্রপোজালের ক্ষেত্রেও কিছুটা সেরকমই। আপনি যদি তাকে তার নাম ধরে ডাকেন, তবে আপনার প্রপোজালের স্কোরটা অনেকটাই বেড়ে যাবে। কেউ কেউ বলে বসতে পারেন যে, ক্লাইন্ট নাম ধরে ডাকলে মাইন্ড করতে পারে। কিন্তু ইউএসএর ক্লাইন্টদেরকে তাদের নাম ধরে ডাকলেই তারা বেশি পছন্দ করে।

তো আপনি তাদের নামটা কোথায় পাবেন? জবের শেষের দিকে অনেকেই তাদের নাম লিখে দেয়। সেখান থেকে নিতে পারেন। অথবা তাদের জব হিস্টোরি চেক করে দেখতে পারেন। সেখানেও পেয়ে যেতে পারেন। কিন্তু যদি না পান? সেক্ষেত্রে অবশ্য কিছু করার থাকবে না।

এটা অনেক সামান্য একটা ব্যাপার মনে হলেও এসবও কিন্তু কাজ পাওয়ার ক্ষেত্রে অনেক গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব খাটায়।

আমি ব্যক্তিগত ভাবে এ পর্যন্ত অনেক জব প্রপোজাল দেখেছি। আর সব গুলো জব প্রপোজালের ক্ষেত্রেই কয়েকটি লাইন বার বার উঠে আসতে দেখেছি। আমার মতে সেসব লাইন ভালোর চাইতে খারাপটাই বেশি করে।

তো চলুন… আমাদের মূল বিষয়বস্তুতে চলে যাওয়া যাক।

I am passionate about…

উৎসাহ থাকা ভালো। কিন্তু ক্লাইন্টকে তা বলার দরকার কি? আপনি উৎসাহী বিধায়ই তো এপ্লাই করছেন, তাই নয় কি? সবাই উৎসাহী মানুষের সাথে কাজ করতে পছন্দ করে। কিন্তু ক্লাইন্টের সাথে তো আপনি আগে কাজ করেন নি, তাই সে কিভাবে বিশ্বাস করবে যে আপনি সত্যি উৎসাহী?

তাই সব চাইতে ভালো হয় এই সেন্টেন্সটাই বাদ দিয়ে দেয়া। এর জায়গায় আপনি ক্লাইন্টকে একটা পূর্বের ঘটনা বলেন। তার কাজের সাথে মিলে যায়, এমন একটা পূর্বে করা কাজের কথা তাকে বলুন। সে কাজটা ভালো ভাবে শেষ করার কাহিনীটা তাকে বলুন এবং এটাও বুঝান যে ওই কাজটা কেনো তার কাজের সাথে মিলে যায়।

অথবা ক্লাইন্টের সাথে কিছু নলেজ শেয়ার করুন। তাকে বলুন যে এ কাজটা ওই জিনিশটা ব্যবহার করেও করা যেতে পারে। তুমি যদি বলো, তবে আমি ওইটা দিয়ে কাজটা করে দিবো।

I believe I’m a good fit for this job / I believe I’m qualified for this job…

এটাতো জব প্রপোজালের ক্ষেত্রে একটা অটোমেটিক লাইন হয়ে গেছে। জব যাই হোক, এ লাইনটা চাই ই চাই।

ধরুন, আপনি একজন ক্লাইন্ট এবং আপনি উপরের লাইনটা পড়ছেন। ফ্রিলান্সার নিজেকে নিজেই আপনার কাছে রিকমেন্ড করছে। আপনি কি বলবেন না, যে সে নিজের ঢোল নিজে পেটাচ্ছে? আপনারও বা তার প্রোফাইল ঘেটে তার এক্সপেরিয়ান্স চেক করার দরকার কি? আরো অনেক ফ্রিলান্সার জবে এপ্লাই করেছে। তাই আপনি তার কাছ থেকে সরে অন্য কাওকে দেখতে লাগলেন। স্বাভাবিক ব্যাপার। তাই না?

এখন ভাবুন, একজন ফ্রিলান্সারের থেকে আপনি কি আশা করেন? সে কিভাবে শুরু করলে আপনার কাছে ভালো লাগবে? যদি ফ্রিলান্সার বলে “আমি আপনার জব ডেসক্রিপশন পড়েছি। ঠিক একই কাজ আমি আগে ব্লা ব্লা ব্লা ভাবে করেছি। সে কাজের স্ক্রিনশট/স্যাম্পল আমি এটাচ করে দিচ্ছি।” তখন আপনার কাছে কেমন লাগবে? নিশ্চয় মনে হবে যে সে তো প্রায় একই কাজটা আগেও করেছে, তাই তাকেই একবার ট্রাই করা যাক। তাই নয় কি?

I’ve done this hundreds of times / I’ve been doing this for __ years.

এটা বলা যেতে পারে। কিন্তু সমস্যা হলো; এটুকু বলেই থেমে যাওয়া। আপনি এটা করেছেন ঠিক আছে, কিন্তু কিভাবে করেছেন? সেটার রেজাল্ট কেমন ছিলো? কিছুতো ক্লাইন্টকে বলেন! তবেই তো ক্লাইন্ট ইমপ্রেস হবে।

আমি একটু আগেও বলেছি, “ঠিক একই কাজ আমি আগে ব্লা ব্লা ব্লা ভাবে করেছি” এখানে আমি ব্লা ব্লা ব্লা বলতে কাজটা কিভাবে করেছি সেটাই বুঝিয়েছি। এই ব্লা ব্লা এর জায়গায় আপনি একটা স্টোরি বলেন। স্টোরিটা আপনার আগের ক্লাইন্টেরই হতে হবে এমনটা নয়। আপনি যেকোনো সময় নিজের জন্য হলেও করেছেন, এমন কিছু বলুন। তবে জবের সাথে অপ্রাসঙ্গিক কোনো স্টোরি বলা যাবে না। তখন ক্লাইন্ট আপনাকে মনে রাখবে, কারন স্টোরি বেশি মনে থাকে। সে আরো ৫০ টা প্রপোজাল দেখলেও আপনাকে ঢুঁ মেরে দেখে যাবে। অন্য কারো সাথে আপনার তুলোনা করবে।

আপনি শতবার কাজটা করেছেন, একটা গ্রেট ব্যাপার। কিন্তু যেকোনো একটার কাহিনি বললেও তা ১০০০ টা করেছেন বলার চাইতেও আকর্ষণীয় দেখায়।

Feel free to check out my portfolio.

এটা স্বাভাবিক ভাবে একটা যথার্থ লাইন দেখাতে পারে। কিন্তু আপনি যদি ক্লাইন্টের দৃষ্টিকোণ থেকে চিন্তা করেন, তবে ভালো সুবিধা পেতে পারেন।

আপওয়ার্কে ফ্রিলান্সারদের পোর্টফলিও ব্রাউস করা অনেক ঝামেলার ব্যাপার। আমরা নিজেরাও তা জানি। তো ক্লাইন্ট কেনো খামখা খড়ের গাদা থেকে সূচ খুজতে যাবে? তার কি সময়ের দাম নেই?

তাছাড়া আপনার পোর্টফলিও আপনার চাইতে ভালো কেউ বুঝতে পারবে না। ক্লাইন্ট আপনার পোর্টফলিও চেক করে গেলো খামখেয়ালি ভাবে। সে কোনটা তার নিজের জবের সাথে ম্যাচ যায়, সেটাই খুঁজে পেলো না। তাই আপনি বাদ। শেষ!

তো কি করা যায়? একটু এক্সট্রা কাজ করেন। জবে এপ্লাই করার সময় আপনার পোর্টফলিও গুলোর লিঙ্ক খুঁজে রাখুন। এবং তাকে পোর্টফলিও লিঙ্কটা দিয়ে দেন। ব্যাস!! আপনি আপনার কম্পিটিটরদের থেকে এগিয়ে গেলেন, সাথে ক্লাইন্টেরও সময় বাঁচল।

Dear Sir or Madam / To whom it may concern / Dear Hiring Manager

যে টিচার আপনাকে এ লাইন গুলো প্রপোজালে লিখতে বলেছে, সে নিশ্চয়ই আপনার আগের জন্মের শত্রু ছিলো। আর তার প্রভাব এখনো কাটেনি। তাই ভালো উপদেশ মনে করেও খারাপ উপদেশটাই দিয়ে ফেলেছে।

বিশ্বাস করুন!! কেউই এসব লাইন পছন্দ করে না। এসব ফর্মালিটি বাদ দেন! রোবোটের মতো কথা না বলে মানুষের মতো তার সমস্যা নিয়ে কথা বলেন।

I’d love the opportunity to work on this.

হ্যাঁ, আপনি তার সাথে কাজ করতে চান। কিন্তু তার লাভ? যেমন আমি গত ৫ বছর ধরে আপওয়ার্কে আছি। আমার পাড়া প্রতিবেশী অনেকেই বলে তাদেরকে আমার সাথে রাখতে এবং কাজ শিখাতে। কিন্তু তাতে আমার লাভ কি? তারা আমার এ কাজে কি কি বাড়তি সুবিধা দিতে পারবে? এটাই তো আমি আগে চিন্তা করবো, তাই না? (এমন স্বার্থপর উদাহরণ দেয়ার জন্য দুঃখিত)

যখন একজন ক্লাইন্ট আপওয়ার্কে জব পোস্ট করে, তখন হয়তো তারা কোনো লক্ষ্য পূরণের চেস্টা করছে, নয়তো তারা কোনো সমস্যায় পড়েছে। তাই আপনার উচিত আপনি তাকে কিভাবে সাহায্য করতে পারবেন এটা বলা। সে কেনো শুধু শুধু আপনাকে তার টিমে নিবে? আপনি তার টিমে কি ভ্যালু এড করতে পারবেন? এটাই তাকে বুঝিয়ে বলুন।

When I read your job post it felt like you were describing me.

প্রত্যেকটা সেন্টেন্সের দুইটা অর্থ থাকে। এক, আপনি যা মনে করে বলছেন। দুই, ক্লাইন্ট যা মনে করে পড়ছে।

আপনি কোনো একটা গান মনে মনে গাইতে থাকুন এবং সে গানের সুরে সুরে টেবিলে টোকা দিন। এখন আপনিই জানেন যে আপনি কোন গানের সুরে টোকা দিচ্ছেন। কিন্তু আপনি অন্য কাউকে গানটার নাম বলতে বলুন। সে পারবে না। কারন, সে শুধু টোকার শব্দই শুনতে পাচ্ছে। সুরটা ধরতে পারছে না।

একই ভাবে, আপনি যখন “it felt like you were describing me” লাইনটা বলেন, তখন আপনার মনে হতে পারে আপনি ক্লাইন্টকে বুঝাতে চাইছেন যে আপনি কাজটার প্রতি কতটা আগ্রহী। তাই না?

কিন্তু ক্লাইন্টের কাছে বিষয়টা বিরক্তকর এবং বিভ্রান্তিকর মনে হয়। তারা আপনাকে এখনো চিনে না এবং তারা এ জব ডেসক্রিপশন তো শুধু আপনার জন্য লিখেনি। তাহলে সে কেনো আপনাকেই বুঝাবে? সো, এ লাইনটা টোটালি বাদ।

I have a degree in…

এ লাইনটা কখনো কখনো কাজে দেয়, তবে তার হার অনেক কম। ধরুন একটা আর্টিকেল লিখতে হবে মোটিভেশন এবং প্রোডাক্টিভিটি এর উপর। তখন আপনি তাকে বলতে পারেন যে আপনার সাইকোলজিতে ডিগ্রি আছে। তাই কাজ করার সময় এটা আপনার কাজে আসবে।

তাছাড়া এটা তাকে বলার কোনো বিশেষ কোনো কারন আমি দেখছি না। এটা শুধুমাত্র ক্লাইন্টের সময় নষ্ট করা। আপওয়ার্ক তো প্রোফাইলে এডুকেশন নামে একটা সেকশন রেখেছে। ক্লাইন্টের যদি জানার ইচ্ছা থাকে যে আপনি কলেজে কি করেছেন, সে আপনার প্রোফাইলে গিয়েই দেখে নিবে।

I’m the perfect person for this job.

আপনি কিভাবে এতটা সিউর হলেন যে আপনিই পারফেক্ট? তার জবে তো আরো অনেকেই এপ্লাই করবে, তাদের যোগ্যতা সম্পর্কে তো আপনি কিছুই জানেন না।

তাই দয়া করে অবাস্তব ও অপ্রাসঙ্গিক প্রত্যাশা করবেন না। আপনাকে পারফেক্ট হতে হবে না। এটার বদলে আপনি বলতে পারেন যে ক্লাইন্টের লক্ষ্য পূরণে আপনি আপনার সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন।

I meet deadlines / my work is 100% original / etc.

ওওও, আপনি আমাকে বাঁচিয়ে দিলেন। আমি আরেকটুর জন্যই আরেক ফ্রিলান্সারকে হায়ার করে ফেলছিলাম। সে ডেডলাইন রাখতো পারতো না, তার সব কাজই নকল। আপনি আমাকে পুরোপুরি বাঁচিয়ে দিলেন!!

কি, বুঝতে পারলেন তো? আমি টিটকারি করছিলাম :p :p আপনি যদি এসব লাইন লিখেন, তবে ক্লাইন্ট আপনাকে সিরিয়াসলি নিবে না এবং আমার মতো মজা করবে।

I am motivated / creative / organized / dedicated / other adjective.

এটা কি সেলফ প্রোমোশন হয়ে গেলো না? অবশ্যই হ্যাঁ। নিজের ঢোল নিজে পেটানোর মতো। ক্লাইন্ট কখনই এসব বিশ্বাস করবে না। তাহলে কি করবেন?

আপনার হয়ে অন্যদের এটা বলতে দিন। প্রশংসাপত্র এক্ষেত্রে ভালো কাজ করে। অথবা আপনার আগের ক্লাইন্টের, টিম মেটের কন্টাক ইনফো দিয়ে দিন তাকে। সে তার সাথে যোগাযোগ করার সম্ভাবনা ৫% এর কাছাকাছি। কিন্তু এতে ক্লাইন্ট আপনাকে বিশ্বাস করবে। কারন আপনি সাহস করে রেফারেন্স দিচ্ছেন।

তো এতক্ষন তো অনেক কিছুই পড়লেন। কি কি শিখলেন এবং বুঝলেন? আমি উদাহরণ দিতে গিয়ে হয়তো ভুল বা বেয়াদবি করে ফেলতে পারি। দয়া করে ক্ষমা দৃষ্টিতে দেখবেন। আপনাদের মতামতের আসায় আছি।

ধন্যবাদ
Abu Hasan Rumi

No Comments Found

Leave a Reply